[english_date], [bangla_time]

শিরোনাম:

ধর্ষণ করেই খুন করা হয়েছিল পাকিস্তানের হিন্দু ডাক্তারি ছাত্রীকে, বলছে অটপসি রিপোর্ট

আত্মহত্যা নয়, খুন করা হয়েছে তাঁদের মেয়েকে, প্রথমি থেকেই পরিবারের তরফে এমনিই দাবি তোলা হয়েছিল। এমনকি হস্টেল থেকে ছাত্রীর দেহ উদ্ধারের পরও এই সন্দেহ দানা বেঁধেছিল। তবে এবার সন্দেহই ঠিক হল। লারকানা জেলার বিবি আসিফা ডেন্টাল কলেজের শেষ বর্ষের ছাত্রী নিমৃতা কুমারীকে ধর্ষণ করে খুই করা হয়েছে এমনই দাবি চূড়ান্ত করল অটোপসি রিপোর্ট।

অটোপসি রিপোর্টেও একই সন্দেহ বহিঋপ্রকাশ ঘেটেছে। ছাত্রীর ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে আসার পর পুলিশশের তরফ থেকে ধর্ষণ ও খুনের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। বুধবার, চাঁদকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের তরফ থেকে ময়না তদন্তের রিপোর্ট জমা দেওয়া পর সাংবাদিকের প্রশ্নের মুখোমুখি হয়ে ওই কলেজের মেডিকো লিগাল অফিসারের তরফে শ্বাসরোধ করে খুনের বিষয়টি স্পষ্ট্য করা হয়েছে।

অন্যদিকে নিহত ছাত্রীর ডিএনএ পরীক্ষা করেও ধর্ষণের প্রমান মিলেছে। পাশাপাশি অন্যান্য পরীক্ষার রিপোর্টও পজিটিভ। তাই জোর করে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে বলেই দাবি উঠেছে।উল্লেখ্য, 16 সেপ্টেম্বর তারিখে আসিফা বিবি মেডিক্যাল কেলেজের হস্টেল থেকে নিমৃতা কুমারীর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।দেহ উদ্ধারের পর থেকে নিহতের ভাই দিদিকে খুন করা হয়েছে এমনই অভিযোগ করে আসছিলেন। তবে   হিন্দু ছাত্রীর অস্বাভাবিক মৃত্যুতে সিন্ধপ্রদেশ জুড়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভের জেরে সরকার বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিতে বাধ্য হন।