২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, বিকাল ৫:০১

শিরোনাম:

বগুড়ার শজিমেক হাসপাতাল থেকে সদ্য ভূমিষ্ঠ শিশু চুরির অভিযোগ

বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল থেকে সদ্য ভূমিষ্ঠ এক শিশু চুরি হয়েছে। বুধবার দুপুরে চুরির এই ঘটনা ঘটলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ খবর চেপে রাখার চেষ্টা করায় সন্ধ্যার পর তা জানাজানি হয়। তবে রাত নয়টার দিকে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত চুরি হয়ে যাওয়া ওই নবজাতককে উদ্ধার কিংবা জড়িত কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।

শজিমেক হাসপাতাল সংলগ্ন ছিলিমপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইন্সপেক্টর রফিকুল ইসলাম জানান, বগুড়ার কাহালু উপজেলার বেলঘড়িয়া গ্রামের সৌরভের সন্তান সম্ভাবা স্ত্রী নাহিদা বেগমকে (২০) মঙ্গলবার রাতে হাসপাতালের দোতলায় গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। বুধবার দুপুরে তাকে তৃতীয় তলায় অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হয়।

শজিমেক হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আব্দুল ওয়াদুদ জানান, নাহিদা বেগম বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে অপারেশন থিয়েটারেই স্বাভাবিকভাবে সন্তান প্রসব করেন। এরপর কর্তব্যরত নার্সরা ওই নবজাতককে নিয়ে অপারেশন থিয়েটারের বাইরে অপেক্ষমাণ নাহিদা বেগমের সঙ্গে আসা তার নানী শ্বাশুড়ি ওবেদা বেগমের কোলে দেন।

তিনি জানান, ওবেদা বেগমের ভাষ্য অনুযায়ী, অপরিচিত এক নারী তার কাছে গিয়ে বলেন বাচ্চাটি অসুস্থ। তাকে শিশু ওয়ার্ডে নিয়ে চিকিৎসা দিতে হবে। এক পর্যায়ে ওই নারী ওবেদার কাছ থেকে বাচ্চাটিকে নিজের কোলে নেন এবং তাকে (ওবেদা) তার সঙ্গে যেতে বলেন। পরে নিচতলায় নামার সময় ভিড়ের মধ্যে অপরিচিত সেই নারী হারিয়ে যান।

শজিমেক হাসপাতালের সহকারি পরিচালক ডা. আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, ‘হাসপাতাল জুড়ে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো থাকলেও ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ কাজ চলার কারণে বেশ কিছু স্থানে সংযোগগুলো বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। ফলে পুরো হাসপাতালের ফুটেজ পাওয়া সম্ভব নয়। তারপরেও যে কয়টি ক্যামেরা সচল রয়েছে সেগুলোর ফুটেজ আমরা দেখছি। তাছাড়া ঘটনাটি আদৌ চুরি নাকি এটা কোন স্যাবোটাজ সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

বগুড়া সদর থানার ওসি বদিউজ্জামান জানান, নবজাতক চুরির খবর শুনেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।